বিচ্ছেদের পর কী হয় বিয়ের আংটি?

বিয়ের বন্ধনে আংটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সোনা বা রুপা যা দিয়েই তৈরি হোক না কেন, শোভা হিসেবে এতে হীরা বা স্ফটিক পাথর যা-ই থাক না কেন, দুটি হূদয়ের বিনি সুতোর বন্ধনের তাত্পর্য তুলে ধরে এই আংটি। বিবাহিত জীবনে স্বামী-স্ত্রীর কাছে এই আংটির মাহাত্ম্য ও আদর থাকে জীবন ভর। এই আংটিকে জড়িয়ে থাকে অনেক মধুর স্মৃতি। তবে কখনো যদি কোনো কারণে দাম্পত্য জীবনের পাট চুকে যায়, তখন বাগদান বা বাসর রাতের অনেক আকাঙ্ক্ষার এই আংটি হয়ে যায় বেদনার স্মৃতি। কোনো কোনো ক্ষেত্রে তা হয়ে যায় নিতান্ত এক অকিঞ্চিত্কর জিনিস।

হলিউড তারকা টম ক্রুজ ও কেটি হোমসের কথাই ধরা যাক। ধুমধাম করে বিয়ের বন্ধনে জড়ান তাঁরা। মেয়ে সুরিকে নিয়ে বেশ সুখে কাটছিল তাঁদের দিন। এখন সবই অতীত। সম্প্রতি হঠাত্ বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন কেটি হোমস। দূরে থাকা টম ক্রুজ ওই সিদ্ধান্তে বেশ অবাক হন। কিন্তু কিছুতে আর জোড়া লাগেনি সেই সংসার। কেটি হোমস যে বেশ ক্ষুব্ধ হয়ে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, এর প্রমাণ মিলল বিচ্ছেদের পর। বিয়ের সেই আংটি ছাড়া ঘুরতে শুরু করেন তিনি। তাঁর এই আচরণের মধ্যে এমন একটা ব্যাপার ছিল—দেখো, তোমাকে ছাড়াই আমি ভালো থাকতে পারি।

এবার শোনা যাক বিখ্যাত গায়ক সিল ও হেইডি কুম দম্পতির কথা। বিচ্ছেদ ঘোষণার পর টেলিভিশন সাক্ষাত্কারে সিল বলেছিলেন, তাঁর জীবনে সাবেক স্ত্রী হেইডি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। হেইডিকে যে তিনি মনে রেখেছেন, এর স্মৃতিচিহ্ন হিসেবে আংটিটি অনামিকায় রেখে দেন। এক মাস পরই দেখা গেল, সিল ও হেইডি বিয়ের আংটি খুলে দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছেন। আবেগের বশে তাঁরা কী পণ করেছিলেন, তা আর কারও মাথায় নেই। বিচ্ছেদের সঙ্গে বিয়ের আংটি অনামিকায় পরা বা না পরায় কী এমন আসে যায়?—এই প্রশ্নের জবাব খুঁজতে গিয়ে নানা জনের নানা মত নিয়ে বিবিসি অনলাইনে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

প্রতিবেদনে মাত্র ৩০ বছর বয়সে বিয়ে বিচ্ছেদ হওয়া ভার্জিনিয়া আয়রনসাইডের জীবনের গল্প তুলে ধরা হয়। বিয়ে বিচ্ছেদের পরও তিনি দীর্ঘদিন অনামিকায় ধারণ করেন বিয়ের আংটি। তাঁর ভাষায়, ‘আমি দ্রুত আমার নিজের সত্তায় ফিরে এসেছিলাম। তবে আংটিটি অনামিকায় ছিল। কারণ তা বেশ সুন্দর আর আমার হাতে বেশ মানিয়েছিল।’ তবে আংটিটি হারিয়ে গেলে বেশ কষ্ট পেয়েছিলেন ভার্জিনিয়া। এই কষ্ট সাবেক স্বামীর স্মৃতি হারিয়ে গেছে বলে নয়; বরং অনেক দিন ধরে আঙুলে পরে থাকা প্রিয় জিনিসটি আর নেই বলেই হয়েছিল। বিয়ে বিচ্ছেদের পর অনামিকায় আংটি পরে থাকার সঙ্গে মনস্তাত্ত্বিক একটি ব্যাপার আছে বলে মনে করেন ভার্জিনিয়া। তাঁর মতে, এই আংটি পরে থাকা বা না থাকার মাধ্যমে আপনি ভবিষ্যত্ জীবন নিয়ে একটি সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। আপনি অন্য কারও সঙ্গে নতুন করে জীবন সাজাবেন, নাকি একা একাই জীবনের বাকি পথ পাড়ি দেবেন—সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া সহজ হয়।

অনেকে মনে করেন, বিয়ে বিচ্ছেদের পর বিয়ের আংটি হাতে পরে থাকলে পুরোনো দিনের স্মৃতি মনে ভর করে। তখন আর নতুন করে জীবন নিয়ে ভাবার ইচ্ছা মানুষের হয় না। বরং স্মৃতিগুলো নিয়ে বেঁচে থাকার মধ্যেই মানুষ এক ধরনের তৃপ্তি পায়। আবার অনেকে অনামিকায় আংটি রাখার পক্ষে নন। তাঁরা নতুন করে জীবনটাকে সাজাতে চান। সে ক্ষেত্রে পুরোনো স্মৃতি তাঁরা রাখতে চান না, পাছে পুরোনো কথা মনে পড়ে যায়! অনেক নারী বিচ্ছেদের পরও তিনি যে স্বাভাবিক জীবনযাপন করছেন, তা সন্তানদের বোঝানোর জন্য অনামিকায় সাবেক স্বামীর দেওয়া আংটিটি পরে থাকেন। মানব-মানবীর সম্পর্ক নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন জুডি জেমস। তাঁর মতে, তারকারা বিচ্ছেদের পর বিয়ের আংটি নিয়ে এক ধরনের লুকোচুরি খেলায় মাতেন। আংটিটি না পরে কেউ কেউ বোঝাতে চান, তিনি আর তাঁর অতীতের সঙ্গে নেই, এখন এগিয়ে যেতে চান শুধু সামনে। অনেক তারকা এই প্রত্যাশা নিয়ে আংটিটি দ্রুত খুলে ফেলেন, সামনের দিনগুলোতে হয়তো আরও ভালো কোনো জীবনসঙ্গী জুটবে।

জুডির মতে, অনেকে বিচ্ছেদের পরও আংটি অনামিকায় পরে থাকেন। কারণ তাঁরা অন্যকে জানাতে চান না আসলে তাঁর জীবনে কী হয়ে গেছে। আবার অনেকে বিষয়টিকে ফেসবুকে স্ট্যাটাস আপডেট করার মতো হালকা মনে করে। এই শ্রেণীর মানুষের কাছে ব্যাপারটা খুব হালকা। বিচ্ছেদের পর আংটি খুলে তাঁরা ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ফেলেন যে তিনি ‘সিঙ্গেল’। মানুষ এখন তাঁর ব্যক্তিগত ব্যাপারকে আর ব্যক্তিগত রাখতে চায় না বলেই এমন আচরণ করেন বলে তিনি মন্তব্য করেন।

মন্তব্য করুন